কালিগঞ্জ প্রতিনিধিঃকালিগঞ্জ উপজেলার দক্ষিণ শ্রীপুর ইউপির ঘোজা গ্রামের মৃত দুলাল চন্দ্র মল্লিকের কন্যা রেবা রানী সরকারের নিজ জমি জোরপূর্বক দখল করে নেওয়া ও প্রাণনাশের হুমকি প্রদান করার অভিযোগ পাওয়াগেছে তার নিজ ২ ভাইয়ের বিরুদ্ধে।

এই বিষয়ে ২৭/০৫/২০২২ তারিখে রেবা রানী সরকার বাদী হয়ে কালিগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন, গৌতম মালিক ও উত্তম মল্লিকের বিরুদ্ধে। অভিযোগ পাইয়া থানার এসআই রহিম উভয়পক্ষকে ৩১/০৫/২০২২ তারিখে বিকাল ৫ ঘটিকায় থানায় বসিয়া একটি মীমাংসাপত্র স্বাক্ষর করা হয়। সত্ত সাপেক্ষে রেবা রানীর সম্পত্তি ১০ দিনের ভিতরে উভয়ের খরচে মৎস্য ঘেরের ভেড়ি বাধ নির্মাণ করিয়া দিবে, গৌতম মল্লিক ও উত্তম মল্লিক। এবং বড় ভাই প্রসেনজিৎ মল্লিক এর ক্রয় কৃত সম্পত্তিতে যে ঘর নির্মাণ করছে তা ১৫ দিনের মধ্যে সরাইয়া নিবে। প্রসেনজিৎ মল্লিকের ক্রয় কৃত সম্পত্তি ও পৈত্রিক সম্পত্তি ডিসেম্বর মাসের মধ্যে ছাড়িয়া দিবে এই বলে মীমাংসাপত্রে উভয়পক্ষের স্বাক্ষর করে। পরবর্তীতে মীমাংসা পত্র শর্ত অনুযায়ী কাজ না করায় রেবা রানী সরকার ইং গত ০৭/০৬/২০২২ তারিখে কালিগঞ্জ থানায় এজাহার দায়ের করে ০৮/০৬/২০২২ তারিখে কালিগঞ্জ থানায় নিয়মিত মামলা হয় মামলা নং- ৯/ অভিযুক্ত আসামিগন হলেন,উপজেলার ঘোজা গ্রামের মৃত দুলাল চন্দ্র মল্লিকের ছেলে গৌতম মালিক (৪২) উত্তম মল্লিক(৪২)

ইং গত ০৪/১২/২০০৮ সালে, টোনা মৌজার জে,এল নং-২১৩,২১৪,সি,এস খতিয়ান নং-১২ এস,এ,খতিয়ন নং-৯ দাগ নং-২৫ খারিজ মতে ৯/৩ বুজরত ১৫৩,ডিএপি খতিয়ান নং- ১১০,দাগ নং ৭২ ও ৩৬০ মোট জমির সম্পত্তির পরিমাণ১,৩২ এ একর মধ্যে ৩৬০ দাগে এর মধ্যে সর্বমোট ৪৯ শতক জমি রেবা রানী সরকারের নামে তার বাবা মা জীবিত থাকাকালীন প্রাপ্ত সম্পত্তি তার তিন ভাইয়ের উপস্থিতি ও সম্মতিতে রেজিষ্ট্রি করে দেয়।তখন থেকেই উক্ত জমি রেবা রানী সরকার দখলে থাকে।যার দলিল নং ৪৬৬৪

ঘটনার সত্যতা যাচাই করতে ঘটনাস্থলে সরোজমিনে গিয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য পরজিৎ সরকার ও এলাকাবাসী ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায় ।

রেবা রানী সরকার,তার বড় ভাই প্রসেনজিৎ মল্লিক নিকট হইতে একই দাগে আরও ২৭, শতক জমি ও রেবার ৪৯ শতক মোট ৭৭ জমি আমি দীর্ঘদিন যাবত মৎস্য চাষ করিয়া আসিতেছে।

গত ২৭/০৫/২০২২ তারিখ আনুমানিক সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে ১ম ও ২য় আসামির নেতৃত্বে পূর্বপরিকল্পিতভাবে ৭৭ শতক জমির ঘেরের অনধিকার প্রবেশ করিয়া আমার মৎস্য ঘের এর দুই পাশে থাকা মাটির ভেরি বাদ কাটিয়া দেয়।

সংবাদ পাইয়া আমি ও আমার স্বামী গগেন্দ্রনাথ সরকার দ্রুত ঘেরে যায় এবং আসামিদের বাধা ও নিষেধ করি ১নং আসামি আমার গলায় গামছা পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যার চেষ্টা করে। আমার স্বামীর ঠেকানোর চেষ্টা করলে ২ নং আসামি আমার স্বামীর গলায় পা দিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যার চেষ্টা করে ।

আসামিরা একযোগে আমার ও ১নং আসামির ঘেরের মধ্যে অবস্থিত বেড়িবাঁধ কাটিয়া অনুমান ৭০ হাজার টাকা ক্ষতি করে এবং আমাদের ঘেরের বেড়জাল খেপলাজান টানিয়া আরও ৭৫ হাজার টাকার মাছ ধরিয়া নিয়ে যায় আমার ঘেরের বেড়িবাঁধ কাটিয়া পার্শ্ববর্তী এক নং আসামির ঘেরের সাথে আমার মৎস্য ঘেরটি একত্রিত করিয়া দেয়।

উক্ত বিষয় নিয়ে গত ০৬/০৬/২০২২ তারিখ প্রথম পক্ষ রেবা রানী সরকার বিজ্ঞ আদালতে ফৌজদারি ১৪৫ ধারা মতে প্রতিকারের অভিযোগ দায়ের করে সাতক্ষীরা বিজ্ঞ আদালত শুনানি শেষে অফিসার ইনচার্জ কালিগঞ্জ থানাকে শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য নির্দেশ প্রদান করেন। বিজ্ঞ আদালতের আদেশ উপেক্ষা করে রেবা রানীর সম্পত্তি ও মৎস্য ঘের জোরপূর মাছ ধরিতে থাকে। এবং প্রসেনজিতের ক্রয় কৃত সম্পত্তি দখল করে ঘর বেধেছে।

বর্তমানে উক্ত মামলার আসামিগং রেবা রানী সরকার ও প্রসেনজিৎ মল্লিকে বিভিন্ন সময় প্রাণনাশের হুমকি প্রদান করছে ও জমিতে যেতে বাধা প্রদান করছে। এই বিষয়ে ভুক্তভোগী রেবা সরকার ও বড় ভাই প্রসেনজিৎ মল্লিক মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে সুবিচার কামনা করছে।