ডেস্ক রিপোর্টঃ খুলনায় দুর্বৃত্তের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে আহত সৈয়দ তাহমিদুন্নবী (২২) নামে এক কলেজছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় পিয়াল মোল্লা নামে একজনকে আটক করেছে পুলিশ।
খুলনা মেডিক্যাল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) রাত সাড়ে ১১টায় তাহমিদুন্নবীর মৃত্যু হয়। তিনি দৌলতপুর থানার নতুন রাস্তা সাহাপাড়া মোড় এলাকার সৈয়দ তৌহিদুন্নবীর ছেলে ও রায়েরমহল কলেজের শিক্ষার্থী।
নিহতের পরিবার ও স্থানীয়রা জানান, বৃহস্পতিবার দুপুর ২টায় নতুন রাস্তা সাহাপাড়া মোড়া এলাকার কাঠমিস্ত্রি পলাশ তাহমিদুন্নবীকে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে যায়। এরপর ৪-৫ জন সন্ত্রাসী তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে। আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। তাকে দ্রুত উদ্ধার করে খুমেক হাসপাতালে ভর্তি করে স্থানীয়রা। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাতে তার মৃত্যু হয়।
দৌলতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম জানান, ঘটনার পর স্থানীয়রা দেয়ানা উত্তরপাড়ার আসমার বাড়ির ভাড়াটিয়া নাসির মোল্লার ছেলে পিয়ালকে পুলিশে সোপর্দ করেছে। অন্যদের আটকে অভিযান চলছে।
উল্লেখ্য, এর আগে ২৯ জুন রাত ৯টায় খুলনা মহানগরীর মুজগুন্নী এলাকায় দুর্বৃত্তের গুলিতে জুলকার নাইম মুন্না (৪১) নামে এক ব্যবসায়ী ও হত্যা মামলার আসামি নিহত হন।