নিজস্ব প্রতিনিধিঃ জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে স্থানান্তর ,উদ্ভাস্তুতা, দ্বন্দ্ব-সংঘাত দিন দিন সমাজে বেড়েই চলেছে। বিশেষ করে যুব, কৃষক পরিবার মৎস্যজীবী, সাতক্ষীরা শ্যামনগর অঞ্চলের কৃষকসহ সাধারণ মানুষ জীবন ও জীবিকায় প্রতিনিয়ত উপলদ্ধি করছে এসব পরিস্থিতি। এসব পরিস্থিতিতে বাংলাদেশের যুবদের রয়েছে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব।

এই বিষয় বিবেচনায় উপকূলীয় অঞ্চলের যুবদের নিয়ে সাতক্ষীরার শ্যামনগরের বরসা রিসোর্টের প্রশিক্ষণ সেন্টারে অনুষ্ঠিত হলো ৩ দিন ব্যাপী জলবায়ু পরিবর্তন, দ্বন্দ্ব রূপান্তর এবং জলবায়ু সক্ষমতা তৈরী বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালা। ‘জলবায়ু সংকট ও দ্বন্দ্ব মোকাবিলা করি, যুব সমাজের সক্ষমতা তৈরী করি’ এ স্লোগানকে সামনে রেখে বারসিক শ্যামনগর রিসোর্স সেন্টার বরসা রিসোর্টের প্রশিক্ষণ সেন্টারে , এই কর্মশালার আয়োজন করে। কর্মশালায় উপস্থিত ছিলেন উপকূলীয় এলাকার যুবসংগঠনের সদস্যবৃন্দ ও সাংবাদিক এবং বারসিক কর্মী। বারসিক রাজশাহী অঞ্চল থেকে উপস্থিত ছিলেন কমিউনিটি ফেসিলিটেটর তহুরা খাতুন লিলি, উত্তম কুমার সংগঠক অমিত সরকার যুব সদস্য রনি দেব শর্মা এবং যুব সাংবাদিক সাবনাজ মুস্তারিন স্মৃতি ।

বারসিক শ্যামনগর রিসোর্স সেন্টারের আঞ্চলিক সমন্বয়কারী জনাব পার্থ সারথী পাল উপস্থাপনায় প্রথম দিন শুভেচ্ছা বক্তব্য এবং দেশের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে দেশের গান দিয়ে ধারাবাহিকভাবে সবার পরিচয় পর্ব হয়। তারপর কর্মশালায় অংশগ্রহনকারীদের থেকে প্রত্যাশা জানা হয়। প্রশিক্ষণ কর্মশালাটি পরিচালনা করেন বারসিক ঢাকা থেকে লেখক ও গবেষক পাভেল পার্থ এবং প্রকল্প সমন্বয়কারী জাহাঙ্গীর আলম। এবং আরো উপস্থিত ছিলেন সহকারী কর্মসূচি কর্মকর্তা বিশ্বজিৎ মন্ডল আল ইমরান রামকৃষ্ণ জোয়ারদার এবং সহযোগী কর্মসূচি কর্মকর্তা চম্পা রানী মল্লিক সহকারী কর্মসূচি কর্মকর্তা মনিকা রানী পাইক,

প্রথমে আবহাওয়া ও জলবায়ু পরিবর্তন ও এর প্রভাব আলোচনা হয়, জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব এর ওপর গ্রুপ ওয়ার্ক করা হয়। আপদ, ঝুকি, দূর্যোগ, বিপদাপন্নতা সক্ষমতা, ঝুঁকি, অভিযোজন, প্রশমন বিস্তার আলোচনাসহ হাতে কলমে বুঝিয়ে দেয়া হয়। এছাড়াও লবনাক্ততার কারণে কে বেশি ঝুকিপূর্ণ, গতিশীল চাপ নিয়ে গ্রুপ ওয়ার্ক করা হয়।

 

কর্মশালার ২য় ও ৩য় দিনে দ্বন্দ্ব কি, দ্বন্দ্ব রূপান্তর, জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে দ্বন্দ্ব রূপান্তর কিভাবে হয়, দ্বন্দ্ব বিশ্লেষণ, দ্বন্দ্ব বিশ্লেষণের উপাদান, গ্রুপ ওয়ার্ক দ্বন্দ্বের ক্যামেল ও ক্যারেক্টার নির্বাচন করা হয় অলোচনা ও নাটকের মাধ্যমে দেখানো হয়। নাটকে অংশগ্রহণ করেন বারসিক শ্যামনগর রিসোর্স সেন্টারের সহকারী কর্মসূচি কর্মকর্তা থেকে রুবিনা রুবি ও জাহাঙ্গীর, রাজশাহী থেকে উত্তম, মানিকগঞ্জ থেকে রুমা আক্তার যুব প্রতিনিধিরা।

 

এছাড়াও কর্মশালাটি প্রাণবন্ত করতে সাংস্কৃতিক পর্ব রাখা হয়। যেখানে কুইজ, নাচ, গান, আবৃত্তি, অভিনয়, কৌতুক, গল্পতে অংশ নেয় কর্মশালায় অংশগ্রহণকারীরা। অংশগ্রহনকারীরা জানান ‘জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে উপকূলীয় এলাকা নানা রকম সমস্যা হয়ে থাকে কিন্তু সেটা তারা জানতো না প্রশিক্ষণের মাধ্যমে তারা ধারণা সুস্পষ্ট হয়েছে।

 

উক্ত প্রশিক্ষনটি সারা বাংলাদেশের যুব শান্তি দূতদের একত্রিত একটি প্লাটর্ফমে আনার লক্ষ্যে খোলা হয়েছে ক্লাইমেট পিচ নেটওয়ার্ক (সিপিএন) নামে ফেসবুক গ্রুপ ও মেসেঞ্জার গ্রুপে অংশগ্রহণকারীদের যুক্ত করা হয় এবং এলাকার ইউপি সদস্য জনাব আব্দুর রউফ এবং বনজীবী নারী উন্নয়ন সংগঠনের সভাপতি জনাবা শেফালী বেগম এবং জনসংগঠনের সভাপতি জনাব শেখ সিরাজুল ইসলাম উক্ত সম্মানিত ব্যাক্তিদের উপস্থিতিতে কর্মশালাটি সার্টিফিকেট বিতরণের মাধ্যমে সমাপ্তি করা হয়।