মোঃ সেলিম মোড়ল,পাইকগাছা খুলনা।খুলনার পাইকগাছায় সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে,এম খালিদ-এমপি ও পুলিশের কাছাকাছি থেকে ইউপি চেয়ারম্যান,রাজনৈতিক নেতা ও সাংবাদিকদের পকেট পারের ঘটনায় সেই ভিআইপি পকেট মার ইসহাক শেখ ( ৫৬) কে পুলিশ গ্রেফতার করেছেন। থানা পুলিশ জানান, অনুষ্ঠানের ভিডিও ফুটেজে ইসহাককে সনাক্ত করে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পুর্বে রূপসা বাসস্টান্ড ক্যাম্প পুলিশের সহায়তায় এসআই তকবীর হুসাইন,এএসআই নাজমূল,আনিছ তাকে আটক করেন। সে রূপসার নৈহাটি গ্রামের মৃতঃ জজ আলীর ছেলে। এদিকে পকেটমারের স্বীকার কপিলমুনির জন্মভূমি প্রতিনিধি সাংবাদিক তপন পাল বাদী হয়ে শুক্রবার ইসহাকের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেছেন।

সংশ্লিষ্ট সুত্র জানিয়েছে,২ আগস্ট-২২ পাইকগাছার রাড়ুলীতে বিশ্বখ্যাত বিজ্ঞানী আচার্য প্রফুল্ল চন্দ্র ( পিসি) রায়ের ১৬১ তম জন্মবার্ষিকী’র নানা কর্মসূচি ছিল। এ কর্মসূচিতে প্রধান অতিথি ছিলেন সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে,এম খালিদ-এমপি। তিনি অনুষ্ঠান স্থলে পৌছানোর পুর্বে সকালে কপিলমুনিতে স্থাপিত ৭১’র মুক্তিযুদ্ধে নিহত শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে স্মৃতি কমপ্লেক্সে আসেন। এ সময় ভিআইপি অতিথি সহ বহু মানুষের ভীড়ে ঠাসা ছিল। এ ভীড়ের মধ্যে মন্ত্রী,এমপি,ওসি’র সম্মুখ থেকে সুকৌশলে ইসহাক কপিলমুনি ইউনিয়ন যুগোল কিশোর দে’র পাঞ্জাবীর পকেট থেকে ১৮শ টাকা পকেট মারেন। এ সময় কপিলমুনির ইউপি চেয়ারম্যান কওসার আলীর ৯ হাজার টাকা,স্থানীয় প্রেসক্লাব সম্পাদক আঃ রাজ্জাক রাজু’র একটি নোকিয়া বাটন মোবাইল চুরি হয়। মন্ত্রী চলে যাবার পরেই এ ঘটনা জানাজানি হলে খবরটি ফেসবুকে ভাইরাল আকারে ছড়িয়ে পড়ে। পরবর্তীতে সাংবাদিকদের মোবাইলে ধারনকৃত ছবি দেখে পুলিশ ইসহাককে গ্রেফতার করেন। ধৃত ইসহাক ১৮শ টাকা চুরির কথা স্বীকার করে বলেন, এখানে আরোও ক’জন পকেটমারের অবস্থান ছিল। এ ঘটনায় থানায় মামলার তথ্য দিয়ে ওসি মোঃ জিয়াউর রহমান বলেন, ধৃত ইসহাক আন্তঃ বিভাগীয় পকেটমারের মূল হোতা, থানায় মামলা হয়েছে। ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করে তাকে আদালতে পাঠানো হয়েছে। সে ইতোপূর্বেও ঝিনায়দহে আটক হয়েছিল।