বরগুনার প্রতিনিধিঃ
বরগুনার আমতলীতে উপজেলা ও পৌর বিএনপির কমিটি ঘোষণাকে কেন্দ্র করে এক পক্ষের আনন্দ শোভযাত্রা ও অপর পক্ষের প্রতিরোধের ঘোষণায় আইন-শৃংঙ্খলা অবনতি হওয়ার আশঙ্কায় উপজেলা প্রশাসন আমতলীতে ১৪৪ ধারা জারি করেছে।

আজ শনিবার দুপুরে আমতলী উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয় থেকে মাইকিং করে বিকাল ৪টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত পৌর শহরে সকল প্রকার সভা সমাবেশ নিষিদ্ধ ঘোষণা করে ১৪৪ ধারা জারি করে। পরে উপজেলা প্রশাসন জেলা প্রশাসনের কাছে ওই আবেদনটি পাঠিয়ে দেয়।

এর আগে গত ২ আগস্ট বরগুনা জেলা বিএনপি সভাপতি মাহবুবুল আলম ফারুক মোল্লা ও সাধারণ সম্পাদক তারিকুল ইসলাম টিটু স্বাক্ষরিত আমতলী উপজেলা বিএনপি ও পৌর বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়। কমিটিতে জালাল উদ্দিন ফকির আহ্বায়ক ও কামরুজ্জামান হিরু মৃধাকে সদস্যসচিব করে সাত সদস্যের উপজেলা কমিটি এবং কবির উদ্দিন ফকির আহ্বায়ক ও তুহিন মৃধাকে সদস্যসচিব করে ১০ সদস্যের পৌর কমিটি করা হয়। কমিটি ঘোষণার পর থেকে সদ্য ঘোষিত উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক জালাল উদ্দিন ফকির ও পৌর কমিটির সদস্য সচিব তুহিন মৃধা উভয় কমিটি বাতিলের জন্য বিরোধীতা করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় গত ১০ আগস্ট বুধবার বিকেলে জালাল উদ্দিন ফকির ও তুহিন মৃধার নেতৃত্বে ছাত্রদল ও যুবদলের অর্ধশতাধিক নেতা- কর্মীরা সরকারী একে হাই স্কুল সংলগ্ন দলীয় কার্যালয়ের সামনে বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সহ-শ্রমবিষয়ক সম্পাদক ফিরোজ উজ জামান মামুন মোল্লার ছবিতে ঝাড়ু ও জুতাপেটা করে এবং জেলা নেতৃবৃন্দের কঠোর সমালোচনা করে প্রতিবাদ জানায়। অপরদিকে ঘোষিত কমিটিকে অভিনন্দন জানিয়ে আজ শনিবার বিকেলে সদ্য ঘোষিত কমিটির উপজেলা বিএনপির সদস্যসচিব কামরুজ্জামান হিরু মৃধা ও পৌর বিএনপির আহ্বায়ক কবির উদ্দিন ফকিরের নেতৃত্বে আনন্দ শোভাযাত্রা করার ঘোষণা দেওয়া হয়। ওই আনন্দ শোভাযাত্রা প্রতিহতের ঘোষণা দেয় সদ্য ঘোষিত উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক জালাল উদ্দিন ফকির ও পৌর বিএনপির সদস্য সচিব তুহিন মৃধা। এই পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি নিয়ে বিএনপির উভয় পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। আইন শৃংঙ্খলার অবনতির আশংকায় পুলিশ উপজেলা প্রশাসনের কাছে ১৪৪ ধারা জারির আবেদন করেন।

জেলা বিএনপির সদস্যসচিব কামরুজ্জামান হিরু মৃধা বলেন, উপজেলা ও পৌর বিএনপির নতুন কমিটি ঘোষনাকে কেন্দ্র করে আমাদের পূর্ব নির্ধারিত আনন্দ শোভাযাত্রা বানচাল করতে উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক জালাল উদ্দিন ফকির ও পৌর বিএনপির সদস্যসচিব তুহিন মৃধা ষড়যন্ত্র করে পাল্টা কর্মসুচি দিয়েছে। বিষয়টি আমরা জেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দকে জানিয়েছি। অচিরেই বিএনপির নেতা-কর্মীরা এর সমুচিত জবাব দিবে ইনশাআল্লাহ।

আমতলী থানার ওসি একেএম মিজানুর রহমান মুঠোফোনে বলেন, বিএনপির দুই গ্রুপের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি ঘোষণাকে কেন্দ্র করে আইন-শৃংঙ্খলা অবনতি হওয়ার আশংকায় আমতলী পৌর শহরে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে।