বিশেষ প্রতিনিধিঃ
সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার কাশিমাড়ী ইউনিয়নে ২৬৬০ জন স্বল্প মূল্যে খাদ্য শস্য ( রেশনকার্ড ) বিতরণের অনিয়ম এর অভিযোগ উঠেছে। যার ভিতরে ইউনিয়ন পরিষদ এর পক্ষ থেকে যাচাই বাছাই করে ইউনিয়নের ৪৮১ জন অসচ্ছল নয়, এক‌ই পরিবারের একাধিক কার্ড ধারী থাকায় বাতিল করে দেওয়া হয়েছে বলে জানাগেছে। বৃহস্পতিবার সরজমিনে তথ্য অনুসন্ধান করে জানা গেছে ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আব্দুর রউফ চেয়ারম্যান থাকা অবস্থায় ২৬৬০ জনের ( রেশনকার্ড ) একটি তালিকা তৈরি করে ঐ তালিকায় অসচ্ছল নয় এমন পরিবারের সদস্যদের নামে রেশনকার্ড তৈরি করে এবং এক‌ই পরিবারের একাধিক কার্ড তৈরি করে যা সরকারের মূল উদ্দেশ্য কি ব্যাহত হচ্ছে বলে জানান সচেতন মহল। তথ্য অনুসন্ধানে জানা গেছে
ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব শমসের আলী ঢালি‌র ভাই রাশেদ আলী ঢালি‌ ক্রমিক নাম্বার ৭৪৫ ছেলে পুলিশ সদস্য, ৭৩৬ ক্রমিক নাম্বারে মোখছেদ আলী ঢালি‌, ৭৩০ শহিদুল ইসলাম ঢালি‌ মৃত্যু পিতা আব্দুল ঢালি‌। আবু সাঈদ পিতা হজরত আলী, ৪৯০ জামাই এর ভাই আজীজুল, ৪৯১ মফিজুর রহমান,৬২৮ শাহিনুর রহমান পিতা ওমর আলী গাজী, ৬৪৪ রবিউল ওমর আলী গাজী, ৭৬১ ওমর আলী গাজী পিতা জেহের আলী, ৭৪৮ মোঃ হাফিজুর রহমান ৭৫৪ ওমর আলী, পিতা ওমর আলী।
সকলেই সচ্ছল ধনাঢ্য পরিবারের। তাদের সকলের ধারের জমি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এছাড়াও অনেক আত্মীয়-স্বজনের নামও রয়েছে এ সকল সচ্ছল ব্যক্তিদের কে তালিকা থেকে নাম বাদ দেওয়ায় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী শোমসের ঢালী, সাধারণ সম্পাদক আবুল হোসেন, ৫ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি ছানাউল্লাহ , ইউনিয়ন যুবলীগের আহ্বায়ক খোকন সানা এবং ইউনিয়ন কৃষক লীগের সভাপতি এশার আলী, হাবিবুল্লাহ সরদার সহ তাদের প্রভাবশালী আত্মীয়দের নাম বাদ পড়ায় আন্দোলন শুরু করে। অনুসন্ধানে আরো জানা যায় বর্তমানে ইউপি সদস্যরা তাদের পরিবারের সদস্যদের নাম তালিকাভুক্ত করে। যেমন ২ নং ওয়ার্ডে আজাহারুল ইসলাম এর বাবা ও ভাইয়ের নাম ব্যবহার করছে। ৬ নং ওয়ার্ডে ইউপি সদস্য সবুর গাজির ভাই ও বোনের নাম ব্যাবহার করেছে। ৭নং ইউ সদস্য সাহাবুদ্দিন সানা নিজের নাম সহ পরিবারের সদস্য ভাই দের নাম ব্যাবহার করে। ৮নং ইউপি সদস্য জামিরুল আলম বাবলু পরিবারের মা, বৌ ভাই সহ অন্যান্য দের নাম ব্যাবহার করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান গাজী আনিছুরজ্জামান আনিছ জানান, রেশনকার্ডের নামের তালিকায় অনিয়ম হয়েছে কিনা আপনারা খবর নিয়ে দেখেন। তালিকায় ইউনিয়নের ১০টাকা কাটধারি‌ তাদেরকে বাছাই করে অসচ্ছল নয় এক‌ই পরিবারের একাধিক কার্ড থাকায় বাতিল করে দেওয়া হয়েছে।
কার্ড ধরী একাধিক ব্যক্তি বলেন আমাদেরকে ভুল বুঝিয়ে রাস্তায় নামিয়ে মিছিল করিয়েছে আমাদের নাম বাদ পড়েনি বাদ পড়েছে তো বড়লোকের নাম। ৮নং ইউপি সদস্য জামিরুল আলম বাবলু বলেন আমার বিলে এক বিঘা জমি নেই, আমি যাদের নাম দিয়েছিলাম তারা অধিকাংশ গরীব মানুষ, আমার ভাই একজন ঢাকায় রিক্সা চালায়। ইউনিয়ন যুবলীগের আহ্বায়ক খোকন সানা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে অনৈতিক বক্তব্য দেয়ার প্রকাশ করেছেন এলাকাবাস। তিনি সরকারি দলের লোক হয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উন্নয়ন ধারা বজায় রেখে যে বিভ্রান্তকার বক্তব্য দিয়েছে তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য দাবি জানিয়েছেন সাবেক যুবলীগ নেতারা।