আজকের খবর প্রতিবেদকঃ
নরেন্দ্র নাথ মুন্ডাকে নির্মমভাবে হত্যা এবং মুন্ডা সম্প্রদায়ের উপর হামলা বিচারের দাবিতে শ্যামনগরে অবস্থান কর্মসুচি পালন করেছে মুন্ডা সম্প্রদায়ের স্বার্থ সংরক্ষণ ও আন্দোলন সংগ্রাম কমিটি সাতক্ষীরা।
বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টায় শ্যামনগর উপজেলা পরিষদ চত্বরে অবস্থান কর্মসূচিতে সাতক্ষীরা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষা কমিটির আহ্বায়ক আশেক ই এলাহির সভাপতিত্বে অবস্থান কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন, দৈনিক প্রথম আলোর নিজস্ব প্রতিবেদক কল্যাণ ব্যানার্জি, জেলা জাসদের সভাপতি শেখ ওবায়েদুস সুলতান বাবলু, সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামী লীগের আইন সম্পাদক অ্যাডভোকেট ওসমান গনি, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষা কমিটির সদস্য সচিব আলিনুর খান বাবুল, বাসদের সদস্য আবু তালেব, অ্যাডভোকেট খগেন্দ্রনাথ, বাংলাদেশ জাসদ সাতক্ষীরার সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ইদ্রিস আলী, সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সভাপতি মমতাজ আহমেদ বাপি, সাতক্ষীরা জেলা সাম্যবাদী দলের তরিকুল ইসলাম, সাতক্ষীরা জেলা ভূমিহীন সমিতির সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ, শ্যামনগর উপজেলা দলিত পরিষদের সঞ্জয় সরকার, বীর মুক্তিযোদ্ধা ডাক্তার আলী আশরাফ, শ্যামনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক সম আব্দুস সাত্তার সাতক্ষীরা জেলা এনজিও সমন্বয় কমিটির সমন্বয়ক জি এম মনিরুজ্জামান, শ্যামনগর উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি ও আওয়ামী লীগ নেতা জিএম আকবার কবির, বীর মুক্তিযোদ্ধা মাস্টার নজরুল ইসলাম, শ্যামনগর উপজেলা এনজিও সমন্বয় কমিটির সমন্বয়ক গাজী আল ইমরান, সুন্দরবন মুন্ডা সংস্থা (সামস)নির্বাহী পরিচালক কৃষ্ণপদ মুন্ডা প্রমুখ। সমগ্র অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন, প্রভাষক দিপংকর বিশ^াস।
এছাড়া অবস্থান কর্মসূচিতে সংহতি প্রকাশ করে এবং নরেন্দ্র হত্যার বিচার কার্যক্রমে সকল ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করে বক্তব্য রাখেন শ্যামনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আক্তার হোসেন।

অবস্থান কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেন, সুন্দরবন আদিবাসী মুন্ডা সংস্থা (সামস), বাংলাদেশ দলিত পরিষদ শ্যামনগর উপজেলা শাখা, শরুব ইয়ুথ টিম, সাতক্ষীরা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষা কমিটি, কেন্দ্রীয় ভূমি কমিটি, প্রতিজ্ঞা শ্যামনগর।
এসময় বক্তারা বলেন, নরেন্দ্র মুন্ডা কে হত্যা করে শ্যামনগরের মাটি থেকে মুন্ডাদের বিলিন করা যাবে না। নরেন্দ্র মুন্ডার রক্তের বিনিময়ে মুন্ডা সম্প্রদায়ের অধিকার প্রতিষ্ঠিত হবে। আপনারা কাদের উপর হামলা করেছেন যারা বন পরিস্কার করে আপনার অট্টলিকা তৈরিতে সহযোগিতা করেছে তাদের। এই জঘন্য হামলার সাথে যারা জড়িত এবং যারা মদদদাতা তাদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনতে হবে। দ্রুত হামলার প্রধান আসামীসহ অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতারের দাবি জানান বক্তারা।
বক্তারা আরো বলেন, ২০০৫ সালে মুন্ডাদের উপর হামলা করা হয়েছিল। ২০১৮ সালেও হামলা করা হয়েছিল। আবার ২০২২ সালেও হামলা করা হয়েছে। শুধুমাত্র সম্পত্তির লোভে তাদের উপর একের পর এক হামলা চালানো হচ্ছে। হামলাকারীদের সিন্ডিকেট ভাঙতে হবে। নরেন্দ্র মুন্ডা হত্যার বিচার নিশ্চিত করতে হলে আন্দোলনের বিকল্প নেই। এই হত্যার বিচার নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন অব্যাহত থাকবে। প্রয়োজন হলে আরো কঠোর কর্মসূচির মাধ্যমে ন্যায় বিচার নিশ্চিত করা হবে।
অনুষ্ঠান শেষে আগামী ১১ সেপ্টেম্বর সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ট উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে স্মারকলিপি প্রদানের কর্মসূচি ঘোষনা করা হয়।